সোমবার, মে ২০, ২০২৪

কোরআন অবমাননার প্রতিবাদে সানন্দবাড়ীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা

আপডেট:

ফরিদুল ইসলাম ফরিদ, দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি: সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ পবিত্র কোরআন শরিফ পুড়ানোর ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সানন্দবাড়ীতে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সানন্দবাড়ী ইমাম ও উলামা পরিষদের উদ্যোগে ৭ জুলাই শুক্রবার বাদ আসর সানন্দবাড়ী বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে সানন্দবাড়ী বাজারের বিভিন্ন অলি গলি ও মেইন রাস্তার মোড়ে মোড়ে প্রদক্ষিণ করে। এতে সর্বস্তরের মুসলিম জনতা উপস্থিত হয়ে প্রতিবাদ জানান।

বিজ্ঞাপন

সমাবেশে তৌহিদী জনতা ও নেতাকর্মীদের নারায়ে তাকবির, আল্লাহু আকবার। দুনিয়ার মুসলিম, এক হও এক হও। আল কুরআনের অপমান, সইবে না রে মুসলমান। সালওয়ান মোমিকার ওই হাত, ভেঙে দাও, গুড়িয়ে দাও। আল কুরআনের আলো, বিশ্বব্যাপী জ্বালো। আল হাদীসের আলো, বিশ্বব্যাপী জ্বালো ইত্যাদি স্লোগান দিতে দেখা যায়।

মিছিলে নেতৃত্ব দেন, সানন্দবাড়ী ইমাম ও উলামা পরিষদ সহ চরআমখাওয়া ইউনিয়ন পরিষদ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ। এতে অংশ গ্রহণ করেন সর্বস্তরের মুসলিম জনতা।

বিজ্ঞাপন

সানন্দবাড়ী ইমাম ও উলামা পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মাহবুব শাহ জিহাদী এর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন সানন্দবাড়ী ইমাম ও উলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আঃ মজিদ, বক্তব্য রাখেন সানন্দবাড়ী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অব: প্রধান শিক্ষক এমএ বারী আকন্দ, চরআমখাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জিয়াউল ইসলাম জিয়া, চরআমখাওয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম লাভলু, সানন্দবাড়ী ইমাম ও উলামা পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, মাওলানা আঃ মজিদ, মাওলানা আক্তারুজ্জামান, মাওলানা মুনিরজ্জামান প্রমুখ।
বক্তাগণের বক্তব্যে কোরআন পোড়ানো ও পদদলিত কারীদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যু কার্যকরের দাবি করেন।

প্রসঙ্গত: সুইডেন সরকারের কাছ থেকে দেশটির উগ্র-ডানপন্থি রাজনীতিবিদ রাসমুস পালুদান তুরস্কের দূতাবাসের সামনে পবিত্র কুরআন পোড়ানোর অনুমতি নেওয়ার পর মুসলমানদের ধর্ম গ্রন্থ আল কোরআন পোড়ানো ও পদদলিত করেন নাস্তিক এ নেতা।

মাওলানা আব্দুল মজিদ তার বক্তব্যে বলেন, গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি, সুইডেনে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্র ডানপন্থী রাজনৈতিক দল হার্ড লাইনের বিতর্কিত নেতা সালওয়ান মোমিকা পবিত্র কুরআনে অগ্নিসংযোগ ও পদদলিত করেছে। যা শুধু কুরআন নয়; বরং বিশ্বের সকল মুসলমানসহ শান্তিকামী প্রতিটি মানুষের কলিজাকে দগ্ধ করেছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

সর্বাধিক পঠিত