সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০২৪

মার্কিন নীতি ও টার্গেট

আপডেট:

লেখক ঃ ইঞ্জিঃ মোঃ সিরাজুল ইসলাম।

তাং ঃ ০১.০৯.২০২৩

বিজ্ঞাপন

 

“মার্কিন নীতি”শক্তিশালী বিদেশ মন্ত্রী “হেনরি কিসিঞ্জার” আমলে ছিলো “Nothing is permanent FRIEND or

বিজ্ঞাপন

ENEMY, only INTEREST! (কিছুই স্হায়ী না, না বন্ধু না শত্রু শুধু “স্বার্থ” স্হায়ী! রজার্স হেরিসের বই “American Foreign Policy”! হা হা হা বিশ্বের সব দুঃখের কারন মার্কিন এই ফর্মূলা! কিছু মানুষ ও এই ফর্মূলায় বিশ্বাসী। আবার তাদের ফেজবুক টুইটার প্রফাইল পিকচার পাবেন কলেমা, ব্যাকগ্রাউন্ড পিকচার পাবেন কুরআনের আয়াত এমন যার যার ধর্ম অনুযায়ী ভন্ডামী। সব কিসিঞ্জার স্যারের ফর্মুলা, শো শো এ্যান্ড শো! ভিতরে ধর্ম মানবতা মনুষ্যত্ব শূন্য, তাকওয়া পূর্ণ জীবন নাই, ইহসান আদল নাই, ইসলামের মূল মন্ত্র ক্ষমা নাই, সত্য মিথ্যা যাচাই-বাছাই নাই, ভন্ডের কথায় একজন কে শত্রু বানায় প্রতিশোধ, সবই সব ধর্মের বিরুদ্ধ!

 

প্রিয় পাঠক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বিশাল হৃদয়ের মানুষ এবং মুখে এক ভিতরে অন্য করতে পারতেন না! তিনি সবাইকে বিশ্বাস করতেন এবং ভালোমানুষ ভাবতেন বা ভালো হয়ে যাবে আশা করতেন! তাই স্বাধীনতার পর “সফদারকে” গোয়েন্দা প্রধান বানালেন যিনি মুক্তি যুদ্ধের সময় ১১ জন বাঙালি পুলিশ অফিসার ওয়াশিংটন কাউন্টার ইন্টেলিজেন্স ট্রেনিং থেকে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছেন ৯ জন দেশে না ফিরে, দুজন ফিরে পাক সরকারের অনুগত চাকুরী করেছেন “সফদার ও রহীম” রহীম পুলিশ বিভাগে থেকেই ইয়াহিয়ার অনুগত ছিলেন এবং রাজাকার বাহিনী চীফ ছিলেন! সফদার ১৯৭৯ সালে বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা সাজানোর নায়ক। তবুও স্বাধীন দেশে বঙ্গবন্ধু প্রতিশোধ না নিয়ে বড় বড় পদ দিলেন, ভালো হয়ে যাবে ভেবে। বাধ্য ও ছিলেন কারন নব্য স্বাধীন দেশে জাসদ তৈরি হলো, ছাত্রলীগ ভাগ হলো, গণবাহিনী, উগ্র ডান বাম হত্যা খুন পণ্য মজুূদ করে সংকট সৃষ্টি, ভাসানী সাব হঠাৎ মুসলিম বাংলা গড়ার ভাষন তাই বঙ্গবন্ধুর অভিজ্ঞ পুলিশ অফিসারদের নিয়োগ দিয়েছেন revenge নেন নাই। তাই বঙ্গবন্ধু হত্যার শত ষড়যন্ত্র “মাহবুবুল আলম চাষীর” বাড়ী “মোস্তাকের” বাড়ী, আমেরিকান রাস্ট্টদূত পরিবর্তন, মার্কিন রাস্ট্র দূতাবাসে ফারুক রশীদের আলোচনা কিছুই বঙ্গবন্ধু জানেন না কারন সরিষায় ভূত “সফদারও রহীম”! এজন্যই বঙ্গবন্ধু হত্যার পর মোস্তাক জিয়া দু’জনকে পদোন্নতি দিয়ে একজনকে গোয়েন্দা চীফ ও একজনকে সচিব করেছিলেন – —

 

মুজিব কে না হত্যা করলে দক্ষিণ এশিয়ায় মার্কিন কতৃত্ব হুমকির মুখে পড়বে —- কিসিঞ্জার ও সিআইএ বুঝেছিলো —-

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

সর্বাধিক পঠিত